সস্তায়.কম আপনার প্রিয় অনলাইন শপ

শিরোপা উদযাপনের রাতে রোমাঞ্চকর জয় লিভারপুলের

খেলাধুলা

johny | ২৩ Jul ২০২০, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা। আরো ছয় ম্যাচ আগে শিরোপা নির্ধারিত হয়ে গেলেও লিভারপুলের হাতে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা তুলে দেওয়া হলো বুধবার। চেলসি ম্যাচের পর পেল দলটির কিংবদন্তি কেনি ডালগ্লিস উত্তরসূরিদের হাতে শিরোপা তুলে দেন।

বুধবার রাতে আট গোলের রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে ৫-৩ ব্যবধানে চেলসিকে হারিয়েছে তিন দশকের অপেক্ষা ঘুচিয়ে শিরোপা জেতা লিভারপুল।

রেকর্ড সাত ম্যাচ হাতে রেখে লিগ শিরোপা অনেক আগে নিশ্চিত হলেও ট্রফিটি এতদিন বুঝে পায়নি লিভারপুল। চেলসি ম্যাচের পর পেল।

লিগের চেলসির বিপক্ষে আধিপত্য ধরে রাখল ‘অলরেড’ খ্যাত দলটি। লিভারপুলের বিপক্ষে আগের দশ লিগ ম্যাচে মাত্র একবারই জয়ের স্বাদ পেয়েছিল চেলসি; ২০১৮ সালের মে মাসে, স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে। বাকি নয় ম্যাচের চারটি জিতেছিল লিভারপুল; পাঁচটি হয়েছিল ড্র।

অষ্টম মিনিটে রেসে জেমসের ক্রসে ম্যাসন মাউন্টের হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে ভালো একটি সুযোগ নষ্ট হয় আগের ম্যাচে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে হারিয়ে এফএ কাপের ফাইনালে ওঠা চেলসির।

ত্রয়োদশ মিনিটে জর্জিনিয়ো ভেইনালডামের সঙ্গে বল দেওয়া নেওয়া করে আক্রমণে ওঠা মোহামেদ সালাহর সঙ্গে ডি-বক্সে টনি রুডিগারের সংঘর্ষ হলে পেনাল্টি দাবি তুলে লিভারপুল। সাড়া দেননি রেফারি।

সবশেষ লিগ ম্যাচে আর্সেনালের বিপক্ষে হেরে আসা লিভারপুল ২৩তম মিনিটে এগিয়ে যায়। চেলসির উইলিয়ান বল হারানোর পর তা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে একটু এগিয়ে ২০ গজ দূর থেকে শট নেন নাবি কেইটা। বল ক্রসবারের ভেতরের দিকে লেগে জালে জড়ায়।

প্রথমার্ধে আরো দুই গোল করে ম্যাচে চালকের আসনে বসে যায় লিভারপুল। ৩৪তম মিনিটে ট্রেন্ট-আলেক্সান্ডার আর্নল্ডের বাঁকানো ফ্রি কিকে লক্ষ্যভেদ করেন। ৪৩তম মিনিটে কর্নারের পর ডি-বক্সে বল পেয়ে সুযোগসন্ধানী শটে স্কোরলাইন ৩-০ করেন ভেইনালডাম।

অলিভিয়ে জিরুদের গোলে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান কমায় চেলসি। সতীর্থের ক্রসের পর উইলিয়ানের শট গোলরক্ষক ফেরালেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ফিরতি প্রচেষ্টায় লক্ষ্যভেদ করেন জিরুদ।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ব্যবধান বাড়ানোর দারুণ সুযোগ নষ্ট করেন মোহামেদ সালাহ। সতীর্থের বাড়ানো বল ধরে গোলরক্ষককে একা পেয়ে গিয়েছিলেন মিশরের এই ফরোয়ার্ড। কিন্তু তার বাঁ পায়ের টোকায় বল পোস্টের অনেক বাইরে দিয়ে যায়।

৫৫তম মিনিটে আলেক্সজান্ডার-আর্নল্ডের ক্রসে রবের্ত ফিরমিনো হেডে জাল খুঁজে নিলে বড় জয়ের পথে ছুঁটতে থাকে লিভারপুল। ছয় মিনিট পর ক্রিস্টিয়ান পুলিসিকের ক্রসে ট্যামি আব্রাহামের শট ঝাঁপিয়ে পড়া আলিসনকে ফাকি দিলে স্কোরলাইন হয় ৪-২। ম্যাচে ফেরে কিছুটা উত্তেজনা। একটু পর আলিসনকে একা পেয়েও ব্যবধান কমাতে পারেননি পুলিসিক।

তার ৭৩তম মিনিটের গোলে জমে ওঠে ম্যাচ। ক্যালাম হাডসন-ওডোইয়ের বাড়ানো উঁচু ক্রস বুক দিয়ে নামিয়ে দেশে শুনে নিখুঁত শটে লক্ষ্যভেদ করেন ২১ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড।

৮৪তম মিনিটে প্রতি-আক্রমণ থেকে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় লিভারপুল। ফ্রি কিক ফেরানোর পর সাদিও মানের পা হয়ে বল পেয়ে যান রবার্টসন। বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে উঠা এই ডিফেন্ডারের ক্রস থেকে পাওয়া বল দারুণ শটে জালে জড়িয়ে দেন অ্যালেক্স অক্সলেড-চেম্বারলেইন।

রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জিতে দারুণ এক রেকর্ডও গড়ল লিভারপুল।

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  • *
  • এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আরও খবর